1. abdulmotin52@gmail.com : ABDUL MOTIN : ABDUL MOTIN
  2. madaripurprotidin@gmail.com : ABID HASAN : ABID HASAN
  3. jmitsolutionbd@gmail.com : support :
নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ এনে রাজৈর পৌর মেয়র ও সচিবের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সভা ও সংবাদ সম্মেলন - Madaripur Protidin
বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:৩৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
রাজৈরে স্কাউটের মহাতাঁবু জলসা ফরিদপুরের ভাঙ্গায় ফেন্সিডিলসহ একজন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার মার্ডার মামলা থেকে রেহাই পেতে মার্ডার, সাবেক চেয়ারম্যানসহ ১৩জনকে আসামী করে পুলিশের চার্জশিট দাখিল, রাজৈরে আলোচিত সালাম হত্যা মামলার বাদীই এখন আসামী কাফরুলে গুলি করে গুরুতর আহত করার চাঞ্চল্যকর ঘটনায় ১ জনকে গ্রেফতার রাজৈরে তিন দিন ব্যাপি স্কাউট সমাবেশ উদ্বোধন রাজধানীর মিরপুর হতে ১০০ কেজি গাঁজাসহ চার মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৪ উখিয়ার বালুখালী ১ টি অবৈধ স্বর্ণের বার এবং ৪,০০০ পিস ইয়াবাসহ ১ জন গ্রেফতার কক্সবাজার খুরুশকুল থেকে একলক্ষ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ মাদক কারবারী গ্রেফতার ঢাকার মিরপুর ১০ থেকে বিপুল পরিমানের জাল নোট সহ ৪ জন গ্রেফতার রাজধানীর তুরাগ থেকে সংঘবদ্ধ গাড়ি চোরাকারবারীর ২ সদস্য’কে গ্রেফতার চোরাই পিকআপ উদ্ধার

নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ এনে রাজৈর পৌর মেয়র ও সচিবের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সভা ও সংবাদ সম্মেলন

  • প্রকাশিত : সোমবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২১, ২.১৩ পিএম
  • ৩৩ জন পঠিত

রাজৈর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি।
নানা অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ এনে মাদারীপুরের রাজৈর পৌর মেয়র ও সচিবের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সভা ও সংবাদ সম্মেলন করেছে ৯জন কাউন্সিলরসহ টেকেরহাট হাটের আয়ের উপর নির্ভরশীল ৭টি গ্রামের সুবিধা বঞ্চিতরা । তবে সংবাদ সম্মেলনের ব্যানারে ৯জন কাউন্সিলরের কথা উল্লেখ থাকলেও উপস্থিত ছিলেন মাত্র ৪জন কাউন্সিলরসহ বেশকিছু  গ্রামবাসী। রোববার রাত ৮টার সময় টেকেরহাট বাসষ্ট্যান্ডে ১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শেখ সাগর আহম্মেদ উজিরের অফিস কক্ষে এ প্রতিবাদ সভা ও সংবাদ সম্মেলন করা হয় ।

সংবাদ সম্মেলনে কাউন্সিলর শেখ সাগর আহম্মেদ উজিরসহ অন্যান্য বক্তারা অভিযোগ করে বলেন, রাজৈর পৌর সভার মেয়র নাজমা রশীদ ও সচিব মাসুদ আলমের যোগসাজশে টেকেরহাট বন্দরের হাট-বাজার ইজারা না দিয়ে সিন্ডিকেট করে খাস আদায়ের নামে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ, অনিয়ম ও দুর্নীতি করে চলেছেন । বক্তারা আরও বলেন, মেয়র ও সচিব সিন্ডিকেট করে সুচতুর ভাবে তাদের ভাবাপন্ন ব্যক্তিদের নামে প্রায় দের কোটি টাকার হাটকে ৮০ লক্ষ টাকায় জেলা প্রশাসকের নিকট প্রস্তাব করলে কাংখিত সরকারী মূল্য পুরন না হওয়ার কারনে জেলা প্রশাসক খাস আদায়ের আদেশ দেন।

১নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শেখ সাগর আহম্মেদ উজির বলেন, মেয়র ও সচিব অসৎ উদ্দেশ্যে ১নং ওয়ার্ডের আওতায় টেকেরহাট গরুরহাটসহ অধিকাংশ হাট থাকা সত্ত্বেও টেকেরহাট খাস আদায় কমিটিতে সরকারী নীতিমালা উপেক্ষা করে এবং জেলা প্রশাসক ও স্থানীয় সরকার মন্ত্রানালয়ের আদেশ (স্মারক নং ০৫.৪১.৫৪০০.১১১.০৬.০১৯.১৯-২৯০ তাং ২৭.৬.২০২১ ও ৪৬.০০.০০০০.০৬৪.৩২.০৩৩.২০১২.২০৬০ তাং ১৮.৭.২০২১) অমান্য করে আমাকে খাস আদায় কমিটিতে না রেখে তাদের ভাবাপন্ন হাট সংশ্লিষ্ট – নয় এমন কাউন্সিলরদের নিয়ে কমিটি গঠন করে টাকা আত্মসাতের পথ  পদ সুগম করেছেন ।

এ বিষয়ে জেলা প্রশাসকের নিকট (১৯.৪.২০২১) লিখিত অভিযোগ করা হলে তিনি ওই খাস আদায় কমিটি পুনর্গঠনের আদেশ দেন । সে আদেশও উপেক্ষিত হয়ে পূর্বের কমিটি দিয়ে খাস আদায়ের কার্যক্রম অব্যাহত রেখেছেন । এর ফলে মেয়র ও সচিব সিন্ডিকেট বিভিন্ন কৌশলে বিগত ৬ মাসে ১কোটি ৩০লক্ষাধিক টাকা খাস আদায় করা সত্তেও পৌর তহবিলে চলতি বছরের ১৯ সেপ্টেন্বর পর্যন্ত মাত্র ৩৪ লক্ষ ৮৬ হাজার একশত সাতাশি টাকা জমা দিয়ে বাকি টাকা আত্মসাৎ করে চলেছে । মাসিক মিটিংয়ে এ আত্মসাতকৃত টাকার বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে মেয়র বা সচিব কেউই এর সদুত্তর দিতে পারেননি বলে ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর আজিজুর হাওলাদার রাহিম সম্মেলনে উপস্থাপন করেন ।

এছাড়াও সাপ্তাহিক ও মাসিক ইজারা না দিয়ে খাস আদায় করায় হাটের আয়ের উপর নির্ভরশীল (ইজারা আদায়) ৮০০শত পরিবার ইজারা আয় থেকে বঞ্চিত হওয়ায় ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে । সভায় উপস্থিত সকল ব্যক্তিরা এব্যাপারে সুষ্ঠ তদন্ত সাপেক্ষে মেয়র ও সচিবের বিচার দাবি করেন । চেয়ারম্যান শাহআলম হামিদুল মিয়ার সভাপতিত্বে ও মান্নান হাওলাদেরর পরিচালনায়  বক্তব্য রাখেন কাউন্সিলর কহিনুর বেগম, কাউন্সিলর বাহাউদ্দিন মোল্লা, কাউন্সিলর আজিজুর রহমান হাওলাদার রাহিম ও কাউন্সিলর শেখ সাগর আহম্মেদ উজির, আবদুল কুদ্দুস মোল্লা, আয়নাল ফকির, রেদওয়ানুল হক রিজন,  দেলোয়ার মোল্লা, বেল্লাল বাওয়ালী, হারুন বেগ, নুরেচ বেপারী, ওলি বাওয়ালী, রেজাউল বেপারী, মোতালেব শেখ, কালাম হাওলাদার , সিরাজ ফকির, নজরুল খান প্রমুখ।

এ ব্যাপারে রাজৈর পৌর সচিব মাসুদ আলম জানান, সংবাদ সম্মেলনে আনীত অভিযোগগুলি কল্পনা প্রসুত, উদ্দেশ্য প্রনোদিত ও সম্পুর্ন মিথ্যা । মুলতঃ রাজৈর পৌরসভা সকল বিধি মেনেই  হাটবাজারের ইজারা আদায়সহ অন্যান্য কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে।

পৌর মেয়র নাজমা রশিদ জানান, কিছু সংখ্যক কাউন্সিলর অবৈধ সুবিধা নিতে না পাড়ায় নানা বাহানা তুলে মিথ্যে অভিযোগ করে যাচ্ছে। মুলত বিধিবিধান মেনে শতভাগ সচ্ছতার সাথে পৌরসভার সকল কার্যক্রম পরিচালিত হচ্ছে ও সরকারি প্রতিনিধির সমন্বয়ে গঠিত খাস আদায় কমিটির মাধ্যমেই হাটবাজারে খাস আদায় হয়ে থাকে। । ফলে অনেকেরই অবৈধ আয়ে ভাটা পড়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে বিভিন্ন অযুহাত তুলে পৌরসভার ভাবমুর্তি ক্ষুন্ন করছে।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বমোট ভিজিট করা হয়েছে

© All rights reserved © 2021

Design & Developed By : JM IT SOLUTION