1. abdulmotin52@gmail.com : ABDUL MOTIN : ABDUL MOTIN
  2. madaripurprotidin@gmail.com : ABID HASAN : ABID HASAN
  3. jmitsolutionbd@gmail.com : support :
রাজৈরে স্বপ্নের ঠিকানায় ৪৭ ঘরে আনন্দ “প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেনো আরো অনেক দিন বেচে থাকেন” - Madaripur Protidin
বুধবার, ০৮ ডিসেম্বর ২০২১, ০৫:৪৫ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
রাজৈরে স্কাউটের মহাতাঁবু জলসা ফরিদপুরের ভাঙ্গায় ফেন্সিডিলসহ একজন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার মার্ডার মামলা থেকে রেহাই পেতে মার্ডার, সাবেক চেয়ারম্যানসহ ১৩জনকে আসামী করে পুলিশের চার্জশিট দাখিল, রাজৈরে আলোচিত সালাম হত্যা মামলার বাদীই এখন আসামী কাফরুলে গুলি করে গুরুতর আহত করার চাঞ্চল্যকর ঘটনায় ১ জনকে গ্রেফতার রাজৈরে তিন দিন ব্যাপি স্কাউট সমাবেশ উদ্বোধন রাজধানীর মিরপুর হতে ১০০ কেজি গাঁজাসহ চার মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব-৪ উখিয়ার বালুখালী ১ টি অবৈধ স্বর্ণের বার এবং ৪,০০০ পিস ইয়াবাসহ ১ জন গ্রেফতার কক্সবাজার খুরুশকুল থেকে একলক্ষ পিস ইয়াবা ট্যাবলেটসহ মাদক কারবারী গ্রেফতার ঢাকার মিরপুর ১০ থেকে বিপুল পরিমানের জাল নোট সহ ৪ জন গ্রেফতার রাজধানীর তুরাগ থেকে সংঘবদ্ধ গাড়ি চোরাকারবারীর ২ সদস্য’কে গ্রেফতার চোরাই পিকআপ উদ্ধার

রাজৈরে স্বপ্নের ঠিকানায় ৪৭ ঘরে আনন্দ “প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যেনো আরো অনেক দিন বেচে থাকেন”

  • প্রকাশিত : মঙ্গলবার, ১৯ অক্টোবর, ২০২১, ৬.০০ পিএম
  • ৯৪ জন পঠিত

মিলন খোন্দকার, রাজৈর (মাদারীপুর) প্রতিনিধি। ॥
‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে দোয়া ছাড়া আর কি দিতে পারি? তাঁকে দেওয়ার মতো আমাগো তো আর কিছুই নাই। তিনি যে মমতাময়ী মা। আজ তাঁর জন্য তো আমরা মাথা গোঁজার ঠাঁই পাইলাম। সুন্দর ঘর পাইছি; জমি পাইছি। এখন আর আমাদের ভূমিহীন বলতে পাারবে না। যা কোনো দিন স্বপ্নেও দেখি নাই। এর চেয়ে আনন্দের আর কি আছে? এতোদিন আমরা মাইনষের বাড়িতে, অন্যের জমিতে খুপড়ি বানাইয়্যা থাকতাম। কতোজনে কতো কথা কইছে। এখন আর কেউ এ সব কথা বলতে পারবে না । নামাজ পড়ে আল্লাহর কাছে প্রধানমন্ত্রীর জন্য দোয়া করি, তিনি যেনো আরো অনেক দিন বেচে থাকেন ।, আমাদের মতোন আরো অনেক অসহায় পরিবারকে যেনো ঘরবাড়ি-জমি দিতে পারেন।

’ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা গড়ার কারিগর প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতি এমন কৃতজ্ঞতা ও অনুভূতি প্রকাশ করলেন মাদারীপুর রাজৈর উপজেলার বাজিতপুর ইউনিয়নের সুতারকান্দি বাজিতপুর গ্রামে নির্মিত আশ্রয়ন প্রকল্পে জমিসহ ঘর পাওয়া চম্পা পাল, শ্যামল পাল, মাসুদ মিয়া, এনায়েত ফকির, আমেনা বেগম শহীদ বেপারী । তাদের মতো একই অনূভূতি জানালেন প্রধানমন্ত্রীর উপহার পাওয়া অন্যান্য সুবিধাভোগীরা।

মঙ্গলবার(১৯-১০-২১) দুপুরের সুতারকান্দি আশ্রয়ন প্রকল্প এলাকার মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার ঘর ভুমিহীন পরিবারের হাতে দলিল দস্তাবেজসহ বুঝিয়ে দেয়ার সময় ঘুরে দেখা গেছে, সবুজে ঘেরা প্রাকৃতিক পারিবেশে গড়ে তোলা হয়েছে দীর্ঘ লাইনে সারি সারি ঘর। প্রতিটি ঘরের রয়েছে সার্বক্ষনিক ফ্রি বিদ্যুৎ সুবিধা। প্রকল্পের সামনে প্রকল্পে দুইপাশ দিয়ে রয়েেেছ প্রশস্ত রাস্তা। রাস্তা দুটি উপজেলা সদর, জেলা সদরসহ রাজধানির সাথে সহজ যোগাযোগের পথ সুগম করে তুলবে। পাশাপশি সুবিধাভোগীদের জন্য আশির্বাদস্বরূপ। বিশুদ্ধ পানীয় জলের চাহিদা মেটাতে প্রতি ১০ পরিবারের জন্য স্থাপন করা হয়েছে একটি করে ডিপটিউবয়েল। তাদের স্ত্রী সন্তানেরা বসবাস করেন প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহার স্বপ্নের ঠিকানায় আর পুরুষ অভিভাবকরা কাজ করেন ঢাকাসহ অন্যান্য জেলায়। তারা সপ্তাহে ১/২ দিন এখানে এসে হাট-বাজার করে দিয়ে আবার চলে যান যে যার কাজে। অনেক পরিবার হাঁস-মুরগী ও গবাদী পশু পালন করেন। এসব পরিবারের অভিভাবকরা কেউ ভ্যান চালক, রিকসা চালক, ঠেলাগাড়ি চালক, ইজিবাইক চালক, কৃষি শ্রমিক, দৈনিক মজুরী ভিত্তিক শ্রমিক। করোনা মহামারীতে অনেকে কর্মহীন হয়ে পড়েছে। অভাবে তাদের কপালে চিন্তার ভাঁজ পড়লেও বাসস্থান থাকায় তারাও খুশি। জমিসহ প্রাপ্ত ঘর এখন অসহায় মানুষগুলোর নিজস্ব সম্পত্তি।

সুবিধাভোগী শিউলি বেগম জানায় , ‘আমাদের এখানকার ঘরগুলো বেশ টেকসই ও বেশ ভালো। আমি সৌভাগ্যবান আমি একটি ঘের পেয়েছি। আমার একমাত্র কন্যার বয়স যখন ৩ মাস, তখন আমার স্বামী মারা যায় । কন্যা সন্তানের মুখের দিক তাকিয়ে আমি আর বিয়ে করিনি । আমার সেই মেয়ে বয়স এখন ১৪ বছর, নবম শ্রেনীতে পড়ে। আমি ওকে অনেক বড় করতে চাই । আমি শেখ হাসিনার জন্য দোয়া করি সে যেন অনেক বেচে থাকে।

অন্য এক সুবিধাভোগী গৃহবধূ সাবিনা বেগম বলেন, ‘আমি নামাজ পড়ে প্রধানমন্ত্রীর জন্য দোয়া করি। আল্লাহ যেনো ওনাকে দীর্ঘজীবী করেন। আমি ও আমার স্বামী (ভ্যান চালক) আমাদের ঘরখানা সুন্দর করে সাজাবো। আমার এক ছেলে । আমরা ওকে অনেক হো পড়া করাইতে চাই ।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান বলেন, ‘মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার হিসেবে আমরা দু‘দফায় ২৮৩টি ঘর বরাদ্দ পেয়েছি। এর মধ্যে ১৬৩ ঘর নির্মাণ কাজ সম্পন্ন হয়েছে। প্রথম পর্যায়ে আজ মঙ্গলবার(১৯-১০-২১) সুবিধাভোগী ভুমিহীন গৃহহীন ৪৭টি পারবারে ২শতাংশ জমিসহ ঘরগুলো হস্তান্তর করা হয়েছে। কাজ শেষ হলেই অন্যান্য ঘরগুলো হস্তান্তর করা হবে।’

গৃহহীনদের জন্য প্রধানমন্ত্রীর উপহার সুন্দর ও মানসম্পন্ন হওয়ার কারণ জানতে চাইলে রাজৈর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আনিসুজ্জামান বলেন, ‘আমরা নিজেদের তত্ত্বাবধানে ঘরগুলো নির্মাণ করেছি। আপ্রাণ চেষ্টা করা হয়েছে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর দেওয়া উপহার (বাসস্থান) শতভাগ ত্র“টিমুক্ত করার। আমাদের আরো পরিকল্পনা আছে আশ্রয়ন প্রকল্পে সুবিধাভোগী পরিবারগুলোকে সরকারের বিভিন্ন দপ্তরের মাধ্যমে সেলাই, পার্লার, মোমবাতি তৈরীসহ কারিগরি প্রশিক্ষন দিয়ে কর্মমুখি করে তোলা হবে। পাশাপাশি খুদ্র লোন দিয়ে আশ্রায়নবাসিদের স্বাবলম্বি করার প্রয়াস রয়েছে। উপজেলা পরিষদের ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক বাবুল বলেন মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন পুরুনে আশ্রায়নবাসীদের স্বাবলম্বি করে গড়ে তুলতে সব রকম ব্যবস্থা নেয়া হবে।###

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বমোট ভিজিট করা হয়েছে

© All rights reserved © 2021

Design & Developed By : JM IT SOLUTION