1. abdulmotin52@gmail.com : ABDUL MOTIN : ABDUL MOTIN
  2. madaripurprotidin@gmail.com : ABID HASAN : ABID HASAN
  3. jmitsolutionbd@gmail.com : support :
মাদারীপুরে আলোচিত ইরিব্লকের ম্যানেজার আশরাফ আলী বেপারীকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা মামলায় ৪৪ আসামীর সবাইকেই খালাস - Madaripur Protidin
শুক্রবার, ০১ মার্চ ২০২৪, ০৩:৩৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
কালকিনিতে পরিছন্নকর্মীর ডেলিভারিতে গৃহবধুর মৃত্যুর অভিযোগ পূবালী ব্যাংক লিমিটেড এর আর্থিক সাক্ষরতা কর্মসূচি পালিত মাদারীপুরের কালকিনিতে মহিলা আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন পরিক্ষা কেন্দ্রে খাতা না দেখানোর জেরে মাদারীপুরে এস.এস.সি পরিক্ষার্থীর ওপর হামলার অভিযোগ কৃষি জমির মাটি কাটার অপরাধে মাদারীপুরের ইট ভাটায় দুই লাখ টাকা জরিমানা শিক্ষা সফরে শিবচরের শিক্ষক শিক্ষার্থীদের মদ্যপান, ভিডিও ভাইরাল বীর নিবাস নির্মান নিয়ে ঠিকাদারদের নয় ছয়। অতিষ্ট রাজৈরের বীর মুক্তিযোদ্ধারা ঢাকার আশুলিয়া থেকে ২৫.৬৬ কেজি গাঁজাসহ ২  মাদক কারবারি গ্রেফতার    ঢাকার ধামরাই থেকে ৯৮০ গ্রাম হেরোইনসহ ১ জন মাদক কারবারি গ্রেফতার ঢাকার আশুলিয়ায় গার্মেন্টস কর্মী’কে গণধর্ষণের মূল পরিকল্পনাকারী মনিরুল ইসলাম @পাপ্পুসহ ৫ জন ধর্ষক গ্রেফতার

মাদারীপুরে আলোচিত ইরিব্লকের ম্যানেজার আশরাফ আলী বেপারীকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা মামলায় ৪৪ আসামীর সবাইকেই খালাস

  • প্রকাশিত : রবিবার, ২৬ নভেম্বর, ২০২৩, ৭.৩২ পিএম
  • ৫১ জন পঠিত

টেকেরহাট (মাদারীপুর)সংবাদদাতা।
মাদারীপুরে ২০০৫ সালের আলোচিত ইরিব্লকের ম্যানেজার আশরাফ আলী বেপারীকে নিশংসভাবে কুপিয়ে হত্যা মামলায় সব আসামীকে বেকসুর খালাস দিয়েছেন আদালত। রোববার বিকেলে অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ আদালত-০১ এর বিচারক লায়লাতুল ফেরদৌস এ রায় দেন। এর আগে রায় ঘোষণাকে কেন্দ্র করে পুরো আদালত জুড়ে নেয়া হয় কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, পূর্ব শত্র“তার জের ধরে গত ২০০৫ সালের ১২ মার্চ সকালে মাদারীপুর সদর উপজেলার ঘটমাঝি ইউনিয়নের আমড়াতলা গ্রামের হামিদ বেপারীর ছেলে আশরাফকে কুপিয়ে হত্যা করা হয়। এই ঘটনায় পরদিন নিহতের বড়ভাই সিদ্দিকুর রহমান বেপারী বাদী হয়ে ৪৪ জনের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাত আরো ২০-২২ জনকে আসামী করে সদর মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। এরপর ২০০৬ সালের ২৭ ডিসেম্বর তৎকালীন সরকারি পুলিশ সুপার মো. শাহ নেওয়াজ খালেদ ৪৬ জনের নামে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এ সময় এজাহারনামীয় ৪ আসামী ঘটনার সাথে জড়িত নয় বলেও উল্লেখ করেন। পরে বিভিন্ন সময় আদালত মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা, মেডিকেল অফিসারসহ ১৬ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ করেন। দীর্ঘ বিচারিক প্রক্রিয়া শেষে দোষ প্রমাণ না হওয়ায় আদালত এজাহারনামীয় সকল আসামীকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেন।

এ সময় ৯৫ পৃষ্টার রায়ে আদালত বলেন, পূর্বের শত্র“তা ও পুরনো ৪টি মামলা থেকে মুক্তি পেতে এই হত্যা মামলায় আসামীদের জড়ানো হয়েছে। যা সমাজের জন্য খুবই ক্ষতিকারক। রাষ্ট্রপক্ষ এই হত্যা মামলায় পর্যাপ্ত সাক্ষ্যপ্রমান হাজির করতে পারিনি। এছাড়া বাদীপক্ষের সাক্ষির কেউই ঘটনার সত্যতা প্রমান করতে পারিনি। এমনকি নিহতের স্ত্রীও তার সাক্ষিতে তিন রকম কথা বলেছে। আদালত সবকিছু বিবেচনা করে দেখেছে এই হত্যাকান্ড এজাহারনামীয় আসামীদের মাধ্যমে সংগঠিত হয়নি। এই ঘটনায় অন্যরা দায়ী, যা প্রমানে ব্যর্থ হয়েছে রাষ্ট্রপক্ষ। তাই সব আসামীই খালাস পেয়েছে।

আসামীপক্ষের আইনজীবি অ্যাডভোকেট মো. জাফর আলী মিয়া জানান, এই রায়ের মাধ্যমে আসামীপক্ষ ন্যায় বিচার পেয়েছে। আশরাফকে হত্যা করা হলেও মামলার এজাহারনামীয় আসামীরা জড়িত ছিলেন না। পূর্ব শত্র“তার বশেই এই মামলায় আসামীদের নাম দেয়া হয়েছিল। দীর্ঘদিন আসামীরা এই মামলায় হয়রানী, অর্থনৈতিক ক্ষতি সাধিত হয়েছে। তবে, রায়ের মাধ্যমে আসামীপক্ষ সন্তুষ্ট।

মাদারীপুরের অতিরিক্ত পিপি (রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবি) অ্যাডভোকেট গোলাম আজম শামীম গৌড়া বলেন, এই রায়ের বিরুদ্ধে বাদীপক্ষ আপিল করবে। বাদীপক্ষ মামলায় যথেষ্ট সাক্ষ্য ও প্রমান আদালতে উপস্থাপন করেছে। তাই রায় নিয়ে বাদীপক্ষ ক্ষুব্ধ।

মাদারীপুরের পুলিশ সুপার মো. মাসুদ আলম বলনে, হত্যাকান্ডের রায়কে ঘিরে পুরো আদালতজুড়ে ব্যাপক নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহন করা হয়। রায়ের আগে আদালতপাড়া থেকে অপিরিচিত লোকজন ও আদালতের কাজে সংশ্লিষ্ট নয়, এমন সবাইকে সরিয়ে দেয়া হয়। কঠোর নিরাপত্তার মধ্যে আসামীদের আদালতে হাজির করা ও রায় শেষে কারাগারে পাঠানো হয়।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বমোট ভিজিট করা হয়েছে

© All rights reserved © 2021

Design & Developed By : JM IT SOLUTION