1. abdulmotin52@gmail.com : ABDUL MOTIN : ABDUL MOTIN
  2. madaripurprotidin@gmail.com : ABID HASAN : ABID HASAN
  3. jmitsolutionbd@gmail.com : support :
ভুমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত হতে যাচ্ছে রাজৈর উপজেলা - Madaripur Protidin
শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ০৪:১১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
টেকেরহাটে বাস, প্রাইভেটকার ও অটোরিকশা ত্রি মুখি সংঘর্ষ । অটোরিকশার চালকসহ দুইজন নিহত । ১০জন আহত মাদারীপুরে ইসলামিক রিলিফের কোরবানীর মাংস পেলো ১৪‘শ পরিবার কালকিনিতে কৃষকের বাড়িতে দফায়-দফায় বোমা হামলার অভিযোগ ঢাকার আশুলিয়ায় গামেন্টস কর্মী সাবিনা ইয়াসমিন (২৫) হত্যাকান্ডের মূলহোতা আবু তালেব গ্রেফতার ঢাকার ধামরাইয়ে অটোচালক কালাম বিশ্বাস হত্যাকান্ডের মূলহোতা ও অটোরিকশা ছিনতাইকারী চক্রের নেতা বিচ্ছু শান্ত (১৯)’সহ চক্রের ৪ সদস্য গ্রেফতার রাজৈরে বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট -২০২৪ অনুষ্ঠিত সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুর থেকে শিক্ষক হারুন অর রশিদ (৩৬)’কে অপহরণপূর্বক কুপিয়ে হত্যাকান্ডের প্রধান আসামীসহ ৩ জন গ্রেফতার মাদারীপুর ক্যাম্পের একটি বিশেষ মাদক বিরোধী অভিযানে ১৫৪৫ পিস ইয়াবাসহ ১ জন মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার। মাদারীপু‌রে ঈদের আগে খামারে আগুন, পুড়লো ১৩ গরুসহ বহু মুরগি মাদারীপুরে ভূমিদস্যুর বিরুদ্ধে এলাকাবাসীর মানববন্ধন

ভুমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত হতে যাচ্ছে রাজৈর উপজেলা

  • প্রকাশিত : রবিবার, ১৯ মার্চ, ২০২৩, ৮.১১ এএম
  • ৯৭৭ জন পঠিত

খোন্দকার আবদুল মতিন ।। মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহারের জমি ও ঘর পেয়ে রাজৈরে এখন আর ভুমিহীন ও গৃহহীন নেই। তার(শেখ হাসিনা) আশ্রয়নে এখন মাথা গোঁজার ঠাঁই পেয়েছে। এখন আর পরে বাড়ীর আঙিনায়, নদী পাড়ে বা রাস্তার পাশে খরকুটা বা পলিথীনের ছাউনি দিয়ে মাথা গোঁজার ঠাঁই করতে হয় না। একটু ঠাঁই পাওয়ার জন্য অন্যের দ্বারা নির্যাতিত হতে হয় না। তাদের সেই মানবেতর জীবন এখন দুঃস্বপ্নের মত মনে হয়। আশ্রয়ন বাসীরা অল্প জায়গার মধ্যে চাষাবাদ করে নিজের পরিবারের তরিতরকারি , শাকসজ¦ী ফলাচ্ছে । তাদের ঘরে চালে লাউয়ের ডগা ও সিমের লতা দুলছে। পরিবারের কর্তা এখন নিশ্চিন্তে আত্ম বিশ^াসে পরিবার সন্তানদের ঘরে রেখে বাইরে গিয়ে শ্রম দিয়ে আয় করে পরিবারের ভরন পোষন করতে পারছে। কেউ মাঠে শ্রম দিচ্ছে কেউ বা ভ্যান চালিয়ে কেউবা ক্ষুদ্র ব্যবসা করে জীবিকা নির্বাহ করছে। এখন কাউকেই আর বাসা ভাড়া গুনতে হয় না। এসব ভুমিহীন ও গৃহহীনরা এখন মাথা গোঁজার ঠাঁই পেয়ে আনন্দিত। তারা এখন প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার জন্য দোয়া করছেন।
রাজৈর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোঃ মাহবুবুর রহমান জানান, ভুমিহীন ও গৃহহীন (ক-শ্রেনী) মুক্ত হতে যাচ্ছে মাদারীপুরের রাজৈর উপজেলা । দীর্ঘ যাচাই বাছাই শেষে উপজেলা প্রশাসন ৪ ধাপে ভুমিহীন ও গৃহহীন ৩৬৮ পরিবারে ২শতক করে জমি ও একটি আধাপাকা ঘর বুঝিয়ে দিয়েছেন। আরো অপেক্ষামান রয়েছে ২৬টি ঘর । এসব ঘরের সুবিধাভোগী পরিবারকে সমিতির আওতায় এনে আয় বর্ধক হাসমুরগী পালন, গবাদী পশু পালন এবং সেলাই প্রশিক্ষন দেয়া হচ্ছে। যাতে তারা স্বাবলম্বি হতে পারে। এরপরেও ঘর বাড়ী বিক্রি করে যারা বিদেশে গিয়ে দালালদের খপ্পরে পড়ে সর্বস্বান্ত হয়ে দেশে ফিরে ভুমিহীন ও গৃহহীন হয়ে পড়লে বা নদীর ভাঙ্গনের ভুমিহীন বা গৃহহীন হয়ে পড়লে তাদের জন্য বিশেষ অগ্রাধিকার ভিক্তিতে ভুমি ও ঘর দিয়ে পুর্নবাসন করা হবে।

রাজৈরউপজেলা সদরের মোল্লাকান্দি আশ্রয়ন প্রকল্পের বাসিন্দা “আন্না আক্তার ” একজন জীবন যোদ্ধার প্রতিক। আন্নাদের পৈত্রিক বাড়ি কুমার নদের ভাঙ্গনে বিলীন হয়ে যাওয়ার পর নানাবাড়ী রাজৈর সদরে এসে বসবাস শুরু করে।১৪-১৫ বছর পূর্বে দুচোখ ভরা স্বপ্ন আর বুকভরা আশা নিয়ে রাজৈর উপজেলার বিস্বাম্ববরদী গ্রামের আন্না আক্তার নব বধূর সাজে ফরিদপুরের জাহিদের সঙ্গে বিবাহ বন্ধনে আবদ্ধ হন। জাহিদ পেশায় একজন ভ্যান/ রিক্সা চালক। জাহিদের স্থায়ী কোন ঠিকানা না থাকায় ভাগ্যের অন্বেষণে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বেড়াতে হয় এবং থাকতে হয় ভাড়া বাসায়। স্বামীর আয়ে কোন রকম দিন কাটতো তার। ছোট ছেলের বয়স যখন ৭ মাস ,হঠাৎ করেই তার স্বামী মারা যায় । তখন যেন তার মাথায় আকাশ ভেঙে পড়ে । তিনি দিশেহারা হয়ে ভাইদের কাছে আশ্রয় নেন। ভাইদের আর্থিক অবস্থা ভালো না হওয়ায় সেখানেও তাদের পক্ষে অসম্ভব হয়ে পড়ে । আন্না আক্তার জানায় “ভাই মাঝে মাঝে বলতো বাসা থাইকা বাইর হইয়া যা”। আন্না আক্তার ছেলে মেয়ে নিয়ে কোথায় যাবে এই ভেবে দিশেহারা সে যেন অথই সমুদ্রে পড়ে গেল । একসময় তিনি বেকারী ফ্যাক্টরিতে কাজ নিলেন । ছেলে মেয়ে নিয়ে দুবেল দুমুঠো খেয়ে কোন রকম দিন কাটছিল আন্না আক্তারের । বেকারীতে কাজ করে যে সামান্য অর্থ উপার্জন করতো তার থেকে স্বল্প অর্থ জমিতে দুই ধাপে ৬ খান করে টিন কিনে মোট বার খান টিন দিয়ে রাস্তার পাশে খাস জমিতে ঘর তুলে ছেল মেয়ে নিয়ে সেখানেই আশ্রয় নেন। তার দিন কোন রকম চলে যাচ্ছিল । বিধির কি নির্মম পরিহাস হঠাৎ এক কাল বৈশাখী ঝড়ে তার ঘর ভেঙে ফেলে । তখন হাতে টাকা না থাকায় নতুন করে ঘর তোলা তার পক্ষে সম্ভব হচ্ছিল না। এমন সময় একদিন রাজৈর এর উপজেলা নির্বাহ অফিসার তাদের কলোনি পরিদর্শনে গিয়ে মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনা উপহার হিসাবে ভূমিহীন আশ্রয়হীনদের জন্য জমি সহ ঘর প্রদান করছেন মতবিনিময়কালে সেই তথ্য সকলের মাঝে তুলে ধরেন। এর পর উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কার্যালয়ে যোগাযোগ করা হলে অফিস থেকে সব প্রক্রিয়া শেষে ২ শতক জমিসহ একটি আধাপাকা ঘরের চাবি পান আন্না আক্তার।
রাজৈর পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডে ২ শতক জমিসহ একটি আধাপাকা বাড়ী আন্না আক্তার ও তার সস্তানদের দেখিয়েছে ভবিষ্যতের দিশা । নিজের নামে একটি বাড়ী তার মনে এনে দিয়েছে স্বস্তি ও আত্মবিশ্বাস । বর্তমানে আন্না নিশ্চিন্ত মনে টেকেরহাট বন্দরে আল রিয়াদ হোটেলে কাজ করে। এ আয় দিয়ে দুই ছেলেমেয়ে লেখাপড়াসহ অন্নসংস্থান হচ্ছে।
মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উপহার জমিসহ ঘর পেয়ে একসময়ের দিশাহারা আন্না আক্তার এখন তার সন্তান সুন্দর ভবিষ্যত নির্মাণের আশায় নিজে দিন রাত পরিশ্রমের পাশাপাশি তাদেরকে নিয়িমিত স্কুলে পাঠান। বড় সন্তান মেয়েটি রাজৈর বালিকা বিদ্যালয়ে ৭ম শ্রেনীতে এবং ছেলেটি আদর্শগ্রাম সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে ৩য় শ্রেনীতে রেখাপড়া করে। তিনি এখন স্বপ্ন দেখেন তার সন্তান পড়ালেখা করে সমাজে প্রতিষ্ঠিত হবে। দেশ এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য কাজ করবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর উদ্দেশ্যে তিনি বলেন “ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা কে ধন্যবাদ , তিনি আমাকে জমিসহ একটি ঘর দিয়ে শুধু মাথা গোঁজার ঠাঁই দেয়নি, আমার ছেলে মেয়ে কে ভবিষ্যতে এগিয়ে যাওয়ার সাহস দিছেন । যা আমার একার পক্ষে কোনদিন সম্ভব ছিল না।” এরকম অনেক আন্নাদের গল্প আছে রাজৈরের আশ্রায়ন প্রকল্পগুলির বাসিন্দাদের ঘরে ঘরে।
রাজৈর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ আনিসুজ্জামান জানান, ঘর বাড়ী বিক্রি করে যারা বিদেশে গিয়ে দালালদের খপ্পরে পড়ে সর্বস্বান্ত হয়ে দেশে ফিরে ভুমিহীন ও গৃহহীন হলে বা নদীর ভাঙ্গনের ভুমিহীন বা গৃহহীন হলে বা অন্য কোন উপায়ে গৃহহীন পড়লে, তাদের জন্য বিশেষ অগ্রাধিকার ভিক্তিতে ভুমি ও ঘর দিয়ে এবং কারিগড়ি প্রশিক্ষন দিয়ে পুর্নবাসন করা হবে। মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার উপহার আশ্রয়ন প্রকল্প নির্মানের সাথে সংযুক্ত থাকতে পেরে আম নিজেকে সৌভাগ্যবান মনে করছি।

সংবাদটি শেয়ার করুন

এই ক্যাটাগরির আরো সংবাদ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

সর্বমোট ভিজিট করা হয়েছে

© All rights reserved © 2021

Design & Developed By : JM IT SOLUTION